বরিশালে খাদ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত


সহ সম্পাদক প্রকাশের সময় : আগস্ট ১৭, ২০২২, ৬:৪৮ অপরাহ্ণ /
বরিশালে খাদ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

জেলা নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনার সমন্বয় কমিটি–২০২২ এর পৃরথম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ(বুধবার) বেলা ১১:০০ টায় বরিশাল জেলার সার্কিট হাউজ সম্মেলন কক্ষে “জেলা নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনা কমিটি” এর ১ম সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির এই সভায় উপস্থিত ছিলেন কমিটির সভাপতি জসীম উদ্দীন হায়দার, জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, বরিশাল মহোদয়। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বরিশাল জেলার সিভিল সার্জন ডা. মারিয়া হাসান, কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের  উপ-পরিচালক জনাব মোঃ হারুন-অর-রশীদ, জেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা  ডা. মোঃ নূরুল আলম। পাশাপাশি কমিটির অন্যান্য সদস্য উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জেলার খাদ্য ব্যবস্থাপনার বর্তমান পরিস্থিতি, সমস্যা ও অন্তরায়, নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতকরনে করণীয় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। একটি উপ-কমিটি গঠনের মাধ্যমে কার্যকর কর্মপরিকল্পনা প্রনয়নের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে নিরাপদ খাদ্য আইন বাস্তবায়নে সকল খাদ্য কর্মীদের স্বাস্থ্য সনদ সংরক্ষন, প্রিমিসেস লাইসেন্স গ্রহন ও নবায়ন, জনসেবামূলক সচেতনতা কার্যক্রম বৃদ্ধিকরণ, নিরাপদ খাদ্য আদালত এ নিয়মিত মামলা করা, স্ট্রিটফুড বিক্রেতাদের সাথে অবহিতকরন সভা আয়োজনসহ ১১ টি বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়। এছাড়াও সভাপতি মহোদয় ব্যবসায়ীগণকে নৈতিকতা ও সততার সহিত ব্যবসা পরিচালনার অনুরোধ করেন। পাশাপাশি স্কুল-কলেজ ও গৃহিণী

পর্যায়ে কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কর্তৃপক্ষকে পরামর্শ দেন।

 এ বিষয়ে জানতে চাইলে বরিশাল জেলা কার্যালয়ের নিরাপদ খাদ্য কর্মকর্তা আবু নাসের মোহাম্মদ শফিউল্লাহ বলেন– 

নিরাপদ খাদ্য আইন-২০১৩ শুধুমাত্র নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের একার বাস্তবায়নের বিষয় নয়। এর সাথে ১৮ টি  প্রতিষ্ঠানের সরাসরি সম্পৃক্ততা রয়েছে। সকল দপ্তরের সমন্বয়ে সম্মিলিত প্রয়াসে জেলার সকলের জন্য নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ, বরিশাল বদ্ধপরিকর। তিনি আরো জানান ৯টি উপজেলা সেমিনার, ১ টি বিভাগীয় সেমিনার, প্রায় ১০০ জন গৃহিনীদের নিয়ে ৪ ধাপে উঠান বৈঠক, ২ টি স্কুলে শিক্ষার্থীদের নিয়ে কর্মসূচী, বস্তি ও পিছিয়েপড়াদের নিয়ে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক কর্মসূচী পালন, ১৮০ জন খাদ্য ব্যবসায়ীকে প্রশিক্ষনের আওতায় আনা, গ্রেডিং স্টিকার প্রদান ইত্যাদি কার্যক্রম বিগত সালে ১ম পূর্নাঙ্গ অর্থবছরে করা হয়েছে এবং চলমান রয়েছে। একজন নিরাপদ খাদ্য কর্মকর্তা হিসাবে জনগণের জন্য নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে তিনি বদ্ধপরিকর বলে জানান তিনি।