ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু


faizahmmed1994@gmail.com প্রকাশের সময় : ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২৩, ১:০৫ অপরাহ্ণ /
ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু

শিক্ষা বার্তা ::

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে ‘আন্ডারগ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রামে’ ভর্তি পরীক্ষার জন্য অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে গতকাল সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) থেকে। আবেদন কার্যক্রম চলবে আগামী ২০ মার্চ পর্যন্ত।

সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৪টায় ভর্তি পরীক্ষার অনলাইনে আবেদন গ্রহণ ও ফি জমা দেওয়ার কার্যক্রম উদ্বোধন করা হবে। উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান আনুষ্ঠানিকভাবে এই অনলাইন ভর্তি পরীক্ষার কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন।

২০২২-২০২৩ শিক্ষাবর্ষে চারটি ইউনিটের মাধ্যমে ‘আন্ডারগ্র্যাজুয়েট প্রোগ্রাম-এ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ইউনিটগুলো হচ্ছে- ‘কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিট’, ‘বিজ্ঞান ইউনিট’, ‘ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিট’ এবং ‘চারুকলা ইউনিট’।

ভর্তি কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আবেদন কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর আগামী ১৮ এপ্রিল থেকে সংশ্লিষ্ট ইউনিটের পরীক্ষা শুরুর এক ঘণ্টা আগ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র ডাউনলোড করা যাবে।

কোন ইউনিটে পরীক্ষা কবে?

ভর্তি কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ‘চারুকলা ইউনিটের’ (সাধারণ জ্ঞান ও অংকন) আগামী ২৯ এপ্রিল (শনিবার), ‘কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটের’ ৬ মে (শনিবার), ‘বিজ্ঞান ইউনিটের’ ১২ মে (শুক্রবার) এবং ‘ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিটের’ ভর্তি পরীক্ষা ১৩ মে (শনিবার) অনুষ্ঠিত হবে। সকল ইউনিটের পরীক্ষা বেলা ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত হবে। ‘চারুকলা ইউনিট’ ছাড়া অন্য তিনটি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা হবে ঢাকাসহ ৮টি বিভাগীয় শহরে।

আবেদনের যোগ্যতা

সাধারণ ভর্তি কমিটির সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারটি ইউনিটে আবেদনের যোগ্যতা ও পরীক্ষার মানবণ্টনের বিষয়েও সিদ্ধান্ত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এবারের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে হলে আবেদনকারীকে ন্যূনতম যোগ্যতা হিসেবে ২০১৭ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত মাধ্যমিক (এসএসসি) বা সমমান এবং ২০২২ সালের উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি) বা সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।

বিজ্ঞান ইউনিটের জন্য এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার (চতুর্থ বিষয়সহ) জিপিএর যোগফল ন্যূনতম ৮ ও আলাদাভাবে ৩ দশমিক ৫০; কলা, আইন ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটের জন্য দুই জিপিএর যোগফল ন্যূনতম ৭ দশমিক ৫০ ও আলাদাভাবে ৩; ব্যবসায় শিক্ষা ইউনিটের জন্য এসএসসি-এইচএসসির জিপিএর যোগফল ন্যূনতম ৭ দশমিক ৫০ ও আলাদাভাবে ৩ এবং চারুকলা ইউনিটের জন্য জিপিএর যোগফল ন্যূনতম ৬ দশমিক ৫০ ও আলাদাভাবে ৩ থাকতে হবে।

মানবণ্টন

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, চারুকলা ইউনিট ছাড়া অন্যান্য ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় এবার ৬০ নম্বরের বহুনির্বাচনী ও ৪০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা হবে। শুধু চারুকলা ইউনিটের পরীক্ষায় ৪০ নম্বরের বহুনির্বাচনী ও ৬০ নম্বরের অঙ্কন পরীক্ষা হবে। চারুকলা ইউনিটের বহুনির্বাচনী পরীক্ষার জন্য ৩০ মিনিট ও লিখিত পরীক্ষার জন্য ৬০ মিনিট সময় থাকবে।

অন্যান্য ইউনিটের বহুনির্বাচনী পরীক্ষার জন্য ৪৫ মিনিট ও লিখিত পরীক্ষার জন্য ৪৫ মিনিট সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। ভর্তি পরীক্ষায় মোট ১২০ নম্বরের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে। এর মধ্যে ভর্তি পরীক্ষায় ১০০ এবং এসএসসি বা সমমান ও উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষার ফলাফলের ওপর থাকবে ২০ নম্বর।